শার্লি হেবদো’র কার্টুন ফরাসিদের অসভ্য জাতীয়তাবাদের পরিচায়ক

মোঃ শহর আলী 30.Oct.2020; 01:13:22

ফ্রান্সের শার্লি হেবদো একের পর এ ধর্মীয় উস্কানিমূলক কার্টুন প্রকাশ করে ফ্রান্সকে একটি আদিম অসভ্য জাতি হিসেবে পরিচয় দিচ্ছে। বিশ্বের বিভিন্ন ধর্মে বিভিন্ন ধরনের পোশাক ও চিহ্ন ব্যবহার করা হয়। যেমন মুসলিম নারীদের হিজাব, ছেলেদের টুপি দাড়ি, হিন্দু নারীদের শাখা-সিঁদুর, ছেলেদের পৈতা-ধুতি ইত্যাদি। এসব নিয়ে বিশ্বের কোথাও তেমন কোন বিধিনিষেধ না থাকলেও বহু বছর যাবৎ ফ্রান্স মুসলিম নারীদের পোশাকের বিরুদ্ধে লেগেছে। সম্প্রতি শুরু করেছে উস্কানিমূলক কাটুন প্রকাশ।

রজাতিসংঘের সন্ত্রাসবিরোধী ও সভ্যতা জোটের প্রধান মাইগুয়েল অ্যাঞ্জেল মোরাটিনোস এক বিবৃতিতে বলেছেন, মুসলমানদের নবী (সা:)কে নিয়ে ফ্রান্সের শার্লি হেবদোর ব্যাঙ্গত্মক কার্টুন গভীর উদ্বেগজনক। এধরনের উস্কানিমূলক কর্মকাণ্ড উত্তেজনা ছড়াবে এবং এ ধরনের কাজ থেকে বিরত থেকে পারস্পরিক সন্মান ধরে রাখার আহবান জানিয়েছে জাতিসংঘ।

জাতিসংঘের বিবৃতিতে তিনি বলেন দু:খজনক ও বেদনাদায়ক এসব কার্টুন নিখুঁত ধর্ম, বিশ্বাস বা মুসলিম জাতিসত্তার জন্যে আক্রমণাত্মক ও নিরাপরাধ নাগরিকদের বিরুদ্ধে সহিংসতার ঘটনাও উস্কে দিয়েছে।  ব্যঙ্গাত্মক ছবি প্রকাশ করায় উত্তেজনা এবং অসহিষ্ণুতার ঘটনা ঘটতে পারে। জাতিসংঘ গভীর উদ্বেগের সঙ্গে পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করছে। ব্যঙ্গচিত্রের মাধ্যমে সাধারণ মানুষের আবেগ, অনুভূতি, ধর্ম, বিশ্বাস বা জাতিসত্তায় আক্রমণ করা হয়েছে।

বিবৃতিতে আরো বলা হয় এধরনের অবমাননাকর কার্টুন ঘৃণা ও হিংসাত্মক উগ্রবাদকে উৎসাহিত করে যা সমাজকে মেরুকরণ এবং খণ্ডিত করে তোলে। তিনি বলেন, মত প্রকাশের স্বাধীনতা এমনভাবে প্রয়োগ করা উচিত যেন কোন ধর্মের প্রতি অবজ্ঞা না করা হয়। আমাদের সবার ধর্মের প্রতি পূর্ণ শ্রদ্ধা রাখা উচিৎ।

মালয়েশিয়ার সাবেক প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ বলেছেন ফ্রান্সের নিস শহরে গির্জায় মানুষ হত্যাকে অনুমোদন দেই না কিন্তু গত কয়েকদশক ধরে ফ্রান্সে মুসলমানদের ওপর যে হত্যাযজ্ঞ চলে এসেছে তাতে ফরাসিদের হত্যার অধিকার মুসলমানদেরও আছে। তিনি বলেন বাকস্বাধীনতা অর্থ এই নয় যে অন্য মানুষকে অপমান করা।


আরও পড়ুন : ভিক্ষুক নেতা কাউন্সিলর প্রার্থী!
আরও পড়ুন : সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায় বিপদমুক্ত

ফ্রান্সে গির্জায় হত্যাকাণ্ডের পর টুইট করে মাহাথির বলেন যে কোনো ধর্মের মানুষ যদি ক্রুদ্ধ হয়ে ওঠে তাহলে সে হত্যা করতে পারে। ফ্রান্সের ইতিহাসে লাখ লাখ মানুষকে হত্যার ঘটনা রয়েছে যার অধিকাংশই মুসলিম।

মাহাথির বলেন মুসলমানদেরকে হত্যা করলে, তাদের ধর্ম অবমাননা করলে তাদেরও ক্রুদ্ধ হওয়ার অধিকার আছে, অধিকার আছে লাখ লাখ ফরাসিকে হত্যা করার। কারণ ফরাসিরা অতীতে লাখ লাখ মুসলমানকে হত্যা করেছে।

মাহাথির বলেন ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট ইমানুয়েল ম্যাক্রোঁ নিজেকে সভ্য পরিচয় দিতে পারছেন না। তিনি খুবই আদিম মনোভাবের পরিচয় দিচ্ছেন। ফ্রান্সের নাগরিকদের অন্য মানুষের অনুভূতিকে সন্মান দেখানোর শিক্ষা দেয়া উচিত। প্রেসিডেন্ট ম্যাক্রো যদি সব মুসলমানকে তার ধর্মের জন্যে দায়ী করেন তাহলে তাদের যে কেউ ক্রুদ্ধ হয়ে ফরাসিদের শাস্তি দিতেই পারে। ফ্রান্স যে ভুল করছে তার জন্যে দেশটির পণ্য বয়কট কোনো ক্ষতিপূরণ হতে পারে না।

 

সূত্র: আমাদের সময়

এ বিষয়ে আরো খবর