সর্বশেষ খবর

'পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজে বিপত্তি ঘটাচ্ছে তীব্র স্রোত

মোঃ শহর আলী 24.Aug.2019; 12:35:02

পদ্মা সেতুর নির্মাণ কাজে ব্যাঘাত ঘটাচ্ছে বর্ষার তীব্র স্রোত। এ স্রোতের প্রভাবে নদীর তলদেশে পলির স্তর জমায় চলাচল করতে পারছে না স্প্যানবাহী ক্রেন। এই দুই প্রাকৃতিক সমস্যায় পড়ে জুলাই মাসে বসানো যায়নি নতুন কোনো স্প্যান।

তবে প্রকল্প পরিচালক জানিয়েছেন, বর্ষায় কাজের গতি ধীর হয়ে আসলেও এটি হিসেবের মধ্যে থাকায় প্রকল্পের কাজ নির্ধারিত সময়ে শেষ করার বিষয়ে কোনো সমস্যা হবে না।

নদীতে তীব্র স্রোত। চেনা পদ্মা এখন অনেকটাই অচেনা, আগ্রাসী। নদী জুড়ে কাজের ছড়াছড়ি। সব পিলারের পাইলিংয়ের কাজ শেষ। ৪২টি পিলারের মধ্যে পুরো কাজ শেষ হয়ে গেছে ৩১টির। স্প্যান বসেছে ১৪টি। এখন একটার পর একটা নতুন স্প্যান যোগ হওয়ার কথা থাকলেও গত এক মাসের বেশি সময় ধরে স্প্যান বসানো যাচ্ছে না নদীর তীব্র স্রোতের কারণে। নদীর মাওয়া প্রান্তে স্রোতের তীব্রতা এতই যে, স্প্যান বহনকারী ক্রেনটি এখান থেকে জাজিরা প্রান্তে সরিয়ে নিতে হয়েছে।

অন্যদিকে নদীর এ স্রোতের সঙ্গে তলদেশে জমছে পুরু পলির স্তর। পিলারগুলোর গোঁড়ায় পলি জমে তৈরি হচ্ছে নাব্য সঙ্কট। ফলে স্প্যানবাহী ক্রেন পিলারের কাছে নিতেও সমস্যা হচ্ছে।

পদ্মা বহুমুখী সেতুর প্রকল্প পরিচালক শফিকুল ইসলাম বলেন, আমরা চেষ্টা করছি যত বেশি কাজ করা যায়। বেশি কাজ করা গেলেই আমাদের জন্য সুবিধা। তবে স্রোত এখন বড় বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে।


আরও পড়ুন : ভলান্টিয়ার ফর বাংলাদেশ রংপুরের উদ্যোগে জাগো ফাউন্ডেশন স্কুলে বিশ্ব শিশুদিবস পালিত
আরও পড়ুন : ভারতের ইতিহাসের অন্ধকার যুগ চলছে !!!

তবে এ সময়টায় বেশ ভালোভাবেই এগিয়ে চলছে ইতোমধ্যে পিলার ওপর বসানো স্প্যানগুলোতে রোড ও রেল স্ল্যাব বসানোর কাজ।

প্রকল্প সংশ্লিষ্টরা বলছেন, নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শেষ হওয়ার ক্ষেত্রে বর্ষা কোন বিরূপ প্রভাব ফেলবে না। কারণ, বর্ষার এ প্রতিকূলতাকে বিবেচনায় রেখেই কাজের পরিকল্পনা সাজানো হয়েছে।

শফিকুল ইসলাম বলেন, এটা তেমন কোনো সমস্যা সৃষ্টি করবে না। কারণ আমরা প্রকৃতির বিষয়কে মাথায় রেখেই পরিকল্পনা করি।

এখন পর্যন্ত মূল সেতুর কাজ শেষ হয়েছে ৮১ ভাগ, আর পুরো প্রকল্পের কাজ ৭১ ভাগ।

সূত্র: সময় টিভি

এ বিষয়ে আরো খবর